Sunday , January 29 2023

প্রোগ্রামের সংগঠন (Program Organization)

প্রোগ্রামের সংগঠন (Program Organization)

প্রোগ্রামের সংগঠন বলতে প্রোগ্রামের গঠনরীতিকে বুঝায়। প্রত্যেক প্রোগ্রামেরই প্রধানত তিনটি অংশ থাকে। যথা- ইনপুট, প্রসেস ও আউটপুট। এ অংশগুলোর পারস্পরিক সম্পর্কের সমন্বয়ে পূর্ণাঙ্গ প্রোগ্রাম গঠিত হয়। ইনপুট বলতে ফলাফল লাভের উদ্দেশ্যে যে সব তথ্য, উপাত্ত ও নির্দেশ কম্পিউটারে দেয়া হয় সেগুলোকে বোঝায়। প্রসেস হলো প্রোগ্রামে দেয়া নির্দেশ অনুসারে প্রদেয় তথ্যকে প্রক্রিয়াকরণ করা বুঝায়। আর আউটপুট বলতে প্রক্রিয়াকরণের ফলে প্রাপ্ত ফলাফলকে বুঝায়। উদাহরণ: দুটি সংখ্যার গুণফল বের করার জন্য-

Program Organization

ইনপুট: সংখ্যা দু’টি প্রদান করতে হবে।

প্রক্রিয়াকরণ: সংখ্যা দু’টি গুণ করতে হবে।

আউটপুট: গুণফল Total = 210 প্রদর্শিত হবে।

 

প্রোগ্রাম তৈরির ধাপসমূহ

কোনো সমস্যা সমাধানের প্রয়োজনে প্রোগ্রাম লেখা হয়। প্রোগ্রাম উন্নয়নের সাধারণ ধাপগুলো হলো:

  • সমস্যা নির্দিষ্টকরণ (Problem Identify)
  • সমস্যা বিশ্লেষণ (Problem Analysis)
  • প্রোগ্রাম পরিকল্পনা (Program Design)
  • প্রোগ্রাম উন্নয়ন বা কোডিং (Program Development or Coding)
  • প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন (Program Implementation)
  • প্রোগ্রাম ডকুমেন্টেশন (Program Documentation)
  • প্রোগ্রাম রক্ষণাবেক্ষণ (Program Maintenance)

 

প্রোগ্রাম তৈরির ধাপগুলোর সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

ক. সমস্যা নির্দিষ্টকরণ: প্রোগ্রামটি যে সমস্যা সমাধানের জন্য রচনা করা হবে, সে সমস্যাটির একটি পরিষ্কার বর্ণনা তৈরি করা হয়। সমস্যাটির ইনপুট ও আউটপুট কী হবে ইত্যাদি এ ধাপে নির্ধারণ করতে হয়।

 

খ. সমস্যা বিশ্লেষন: সমস্যা সমাধানের জন্য কী করণীয় তা পর্যালোচনা করে বিশ্লেষণ করা হয়। একাধিক সমাধান থাকলে ব্যবহারকারীর জন্য কোনটি বেশি উপযুক্ত তা পর্যালোচনা করে দেখতে হয়।

 

গ. প্রোগ্রাম ডিজাইন: সমস্যা বিশ্লেষণের পর এ ধাপের কাজ শুরু হয়। অ্যালগরিদম ও ফ্লোচার্ট-এর সাহায্যে প্রোগ্রামের পূর্ণাঙ্গ পরিকল্পনা প্রণয়ন করাকে প্রোগ্রাম ডিজাইন বলা হয়। প্রোগ্রাম উন্নয়নের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ হলো প্রোগ্রাম ডিজাইন।

 

ঘ. প্রোগ্রাম ডেভেলপমেন্ট বা কোডিং: কম্পিউটারের বোধগম্য ভাষায় প্রোগ্রাম রচনাকে কোডিং বলা হয়। সমস্যা সমাধানের জন্য তৈরিকৃত ফ্লোচার্ট ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় বিষয় বিবেচনা করে কম্পিউটারের ভাষায় নির্দেশসমূহ সাজিয়ে প্রোগ্রাম রচনা তথা কোডিং করতে হয়।

 

ঙ. প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন: প্রোগ্রাম রচনার পর সম্পূর্ণ প্রোগ্রাম পরীক্ষা করে দেখতে হয়। এ সময় প্রয়োজনীয় সংশোধনের মাধ্যমে প্রোগ্রামকে সম্পূর্ণভাবে তৈরি করে নেয়া হয়।

 

চ. প্রোগ্রাম ডকুমেন্টেশন: ভুল সংশোধনের পর প্রোগ্রাম সঠিকভাবে কাজ করলে তাকে Run Program বলা হয় এবং এ প্রোগ্রামকে ভবিষ্যতে রক্ষনের জন্য লিপিবদ্ধ করতে হয়। এ লিপিবদ্ধকরণকে প্রোগ্রাম লেখ্য বা ডকুমেন্টেশন বলা হয়। ডকুমেন্ট তৈরি করা থাকলে পরবর্তী আপডেটেড ভার্সন তৈরি করতে সুবিধা হয়।

 

ছ. প্রোগ্রাম রক্ষণাবেক্ষণ: বিভিন্ন প্রয়োজনে ও প্রোগ্রামের উন্নতিকল্পে প্রোগ্রামের আধুনিকীকরণ, পরিবর্তন, পরিবর্ধন, প্রোগ্রামের ভুল সংশোধন ইত্যাদি প্রোগ্রাম রক্ষণাবেক্ষণ কাজের অন্তর্ভুক্ত।

About admin

Check Also

c programming

সি প্রোগ্রমিং (C Programming) ও সি ভাষার প্রোগ্রামের গঠন

সি প্রোগ্রমিং (C Programming) C হচ্ছে মধ্য পর্যায়ের হাই-লেভেল ল্যাঙ্গুয়েজ। এটি শক্তিশালী প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ। এ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *